A Latest Crime Report Bengali Newspaper
সোমবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ইংরেজি, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

বাগেরহাটে সনাকের উদ্যোগে ভূমি খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ‘কার্যক্রম সূচনা অনুষ্ঠান’ অনুষ্ঠিত

প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন বাগেরহাটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো: মোমিনুর রশীদ।


প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন বাগেরহাটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো: মোমিনুর রশীদ।


বাগেরহাট প্রতিনিধিঃ ২৮ মার্চ, ২০১৭ ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) এর অনুপ্রেরণায় গঠিত সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) বাগেরহাট‘র উদ্যোগে  বাগেরহাট প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ভূমি খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কার্যক্রম সূচনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সনাক সভাপতি রাম কৃষ্ণ বসু এর সভাপতিত্বে এবং সনাক সদস্য প্রফেসর চৌধুরী আব্দুর রব এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সনাকের ভূমি বিষয়ক উপ-কমিটির আহবায়ক এ্যাডভোকেট এস, এম, নওরোজ মহীত। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাগেরহাটের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো: মোমিনুর রশীদ। অন্যান্যদের মধ্য হতে বক্তব্য রাখেন বাগেরহাট সদর উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো: নাজমুল হুদা, সাব-রেজিষ্ট্রার জাহাঙ্গীর কবির মো: ফয়সাল, প্রবীন সাংবাদিক এ্যাডভোকেট মোজাফফর হোসেন,  জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও সুজন সভাপতি অধ্যাপক মোজাফফর হোসেন, টিআইবি‘র সিনিয়র প্রোগ্রাম ম্যানেজার ফজিলা খানম, সাংবাদিক শেখ আবু সাইদ, সদর ইউনিয়ন  ভূমি সহকারি কর্মকর্তা মলঙ্গী ইসহাক উদ্দিন, রণবিজয়পুর ইউনিয়ন ভূমি সহকারি এইচ, এম, আনিচুর রহমান, স্বজন সদস্য জ্ঞান রঞ্জন চক্রবর্তী প্রমুখ।

টিআইবি ‘বিল্ডিং ইন্টিগ্রিটি ব্লকস ফর ইফেকটিভ চেঞ্জ-বিবেক এর আওতায় শিক্ষা, স্বাস্থ্য, স্থানীয় সরকার, জলবায়ূ অর্থায়নে সুশাসন খাতের পাশাপাশি ভূমি খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে নতুন কার্যক্রম গ্রহণ করেছে। উক্ত কার্যক্রমের সফলভাবে বাস্তবায়ন, কার্যকর ফলাফল ও প্রচারণার জন্য ‘ভূমি খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কার্যক্রম সূচনা’ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এ বিষয়ক একটি উপস্থাপনা উপস্থাপন করেন টিআইবি‘র সিনিয়র প্রোগ্রাম ম্যানেজার ফজিলা খানম। উপস্থপনা শেষে মুক্ত আলোচনায় বক্তাগণ বলেন, ভূমি খাত একটি জটিল বিষয়। এখানে কাজের ক্ষেত্রে সমন্বয়ের অভাব রয়েছে। জনবল ঘাটতি আছে। জরিপের দীর্ঘ সূত্রিতা সেবাকে আরো ব্যহত করে। অনেক সময় সঠিক ডকুমেন্টস পাওয়া যায় না। এ খাতে মধ্যস্বত্তভোগী ও দালালদের দৌরাত্ব বিদ্যমান। অনেক সময় সঠিক তথ্য না জানার কারণেও জনসাধারণ ভোগান্তি ও দুর্নীতির শিকার হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে অবাধ তথ্য প্রবাহ নিশ্চিত করা গেলে এবং জনবল সংকট দুর করতে পারলে ভোগান্তি কিছুটা কমবে বলে বক্তাগণ মনে করেন। প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে বলেন, বর্তমান সরকার মানুষের দোড় গোড়ায় সেবা পৌছে দিতে বদ্ধপরিকর। এ লক্ষ্যে ডিজিটাইলেজশনের কাজ চলছে। বর্তমানে বাগেরহাট জেলা প্রশাসকের কার্যালয় হতে ৩৬টি সেবা অনলাইনে প্রদান করা হচ্ছে। অনলাইনে সেবা নেয়ার জন্য আবার সবাই উপযুক্ত নয়। এ ক্ষেত্রে তাদেরকেও যোাগ্য করে তুলতে হবে। জনগণকে সচেতন করে তুলতে পারলে এবং অবাধ তথ্য প্রবাহ নিশ্চিত করতে পারলে ভূমি খাতে দুর্ভোগ কিছুটা হলেও কমবে।  এ ছাড়া ভূমি খাতে সেবাদানকারী সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো একই গঠন কাঠামোতে আনতে পারলে সেবা গ্রহণ আরও সহজ হবে। পরিশেষে ভূমি খাতে বাগেরহাটে কার্যক্রম গ্রহণ করায় টিআইবিকে ধন্যবাদ জানান।

 

সিডর/বুধবার, ২৯ মার্চ ২০১৭ ইংরেজি